র্সবশেষ শিরোনাম

বুধবার, জানুয়ারি ২৩, ২০১৯

বাংলা পত্রিকা

Main Menu

সপ্তাহের শুরুতে সম্পূর্ণ নতুন সংবাদ নিয়ে

প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ইম্পিচমেন্ট দাবী হাউজ অব কংগ্রেস প্রতিনিধিদের

বাংলা পত্রিকা ডেস্ক: ক্ষমতার অপব্যবহার, সংবিধান লঙ্ঘন আর বিশ্বজুড়ে যুক্তরাষ্ট্রের অবস্থানকে খাটো করা এবং দেশের প্রতিরক্ষা ব্যবস্থাকে হুমকির মুখে ফেলে দেয়ার অভিযোগে আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের ইম্পিচমেন্ট চেয়েছে হাউজ অব কংগ্রেস প্রতিনিধিরা।
ছয়জন ডেমোক্রেটিক কংগ্রেসম্যান প্রেসিডেন্টের অভিশংসন বা ইম্পিচমেন্ট চেয়ে লিখিত স্বাক্ষর শেষে বুধবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন। এসময়ে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন টেনিসির কংগ্রেসম্যান স্টিভ কোহেন, টেক্সাসের আল গ্রীন, ইলিনয়ের লুইস গুটিয়ারেজ এবং নিউইয়র্কের কংগ্রেসম্যান অ্যাড্রিয়ানো এসপিলাত অন্যতম। জুডিশিয়ারী কমিটির আহ্বায়ক হিসেবে হাউজ অব কংগ্রেসে তারা প্রেসিডেন্টের অভিশংসন চেয়ে লিখিত আবেদন করেন বলে জানিয়েছেন। একই সাথে সাংবাদিক মাধ্যমের ওপর ট্রাম্পের নীতিবাচক দৃষ্টিভঙ্গিরও সমালোচনা করেন, হাউজ অব রিপ্রেজেনটেটিভ’র আইনপ্রণেতারা।
এদিকে কমান্ডার ইন চীফ হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাস্পের ক্ষমতা কমিয়ে আনার পক্ষে অবস্থান নিয়েছে রিপাবলিকান সংখ্যাগরিষ্ঠ ইউএস সিনেট’র বেশ কয়েকজন আইনপ্রণেতা। বিশ্বজুড়ে পারমানবিক বোমা হামলার দায়িত্বপ্রাপ্ত আর্মির কমান্ডার প্রেসিডেন্ট বা কমান্ডার ইন চীফের পক্ষ থেকে অবৈধভাবে পারমানবিক হামলা চালানোর নির্দেশ প্রত্যাখ্যান করতে পারবেন। এমন মত মত দিয়েছেন বেশ কয়েকচন আমেরিকান সিনেটর।
উত্তর কোরিয়ার বিরুদ্ধে ট্রাম্পের বিভিন্ন হুমকির প্রেক্ষাপটে উদ্বিগ্ন হয়েই এমন শুনানির আয়োজন করা হয়। যে কোনো সময়েই পারমাণবিক হামলা শুরু করে দিতে পারেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প, এমন আশঙ্কা থেকেই সিদ্ধান্তটি আইনে পরিণত করতে চান সিনেটররা। এ কারণে যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্পের পরমাণু অস্ত্র ব্যবহারের একক ক্ষমতা থাকা উচিত কিনা, মঙ্গলবার এ নিয়ে শুনানি হয়েছে ইউএস কংগ্রেসের একটি সিনেট কমিটিতে। ১৯৭৬ সালের পর এমন ঘটনা ঘটল বলে খবর দিয়েছে মূলধারার গণমাধ্যমগুলো। এর আগে সাবেক প্রেসিডেন্ট সিনিয়র বুশ ও জর্জ ডব্লিউ বুশ ইরাকি বিধ্বংসি অস্ত্র আছে বলে এককভাবে হামলা চালায়। পরবর্তীতে তা মিথ্যা প্রমাণিত হয়ে যায়। এ নিয়ে কথিত ইসলামিক জঙ্গি সংগঠন আইএসর উত্থান’ সহ নানা ইস্যুতে প্রশ্নের মুখে পড়ে আমেরিকান কর্তৃত্ব। ফলে অনেকটা একরোখা প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পও ভুল বশত পরমানু হামলা চালিয়ে বিশ্বের অস্থিতিশলীতা আরো উস্কে দিতে পারেন বলে আশঙ্কা করছেন সিনেটের আইনপ্রণেতারা। শূনানিতে অবসরপ্রাপ্ত সাবেক কমান্ডারও এমন নীতির পক্ষে মত দিয়েছেন। -টাইম টেলিভিশন

 

এ রকম আরো খবর

  • শেখ হাসিনা এমন নির্বাচন না করলেও পারতেন
  • হাসিনার কারচুপির নির্বাচনের বিরুদ্ধে একাট্টা পশ্চিমাবিশ্ব
  • নির্বাচন নিয়ে জাতিসংঘ-যুক্তরাজ্যের কড়া সতর্কবার্তা
  • জর্জ বুশ সিনিয়র মারা গেছেন
  • ফিরহাদ হাকিম: স্বাধীনতা-উত্তর কলকাতার এই প্রথম মুসলমান মেয়র ঠিক কেমন মানুষ?
  • নিউইয়র্ক ষ্টেট সিনেটর হোজে পেরাল্টার পরলোকগমন
  • অবৈধ উপায়ে যুক্তরাষ্ট্রে প্রবেশকালে ৬ বাংলাদেশী গ্রেফতার
  • নিউইয়র্ক টাইমসে অধ্যাপক খালেদ ফাদেলের কলাম ॥ ইমামদের দিয়ে গাওয়ানো হচ্ছে রাজতন্ত্রের গান : মক্কা-মদিনাকে অপব্যবহার করছে রাজপরিবার
  • বিএনপির পাশে চীন, অভিযোগ হাসিনার দলের
  • বাংলাদেশে সুষ্ঠু নির্বাচন অনুষ্ঠানে যুক্তরাষ্ট্র কংগ্রেসের হস্তক্ষেপ কামনা
  • ট্রাম্পের বিরুদ্ধে সিএনএনের মামলা : ‘স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী চাকরিচ্যুত হতে পারেন’
  • ক্যালিফোর্নিয়ায় ভয়াবহ দাবানলে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫০
  • error: Content is protected !! Please don\'t try to copy.