র্সবশেষ শিরোনাম

মঙ্গলবার, সেপ্টেম্বর ১৮, ২০১৮

বাংলা পত্রিকা

Main Menu

সপ্তাহের শুরুতে সম্পূর্ণ নতুন সংবাদ নিয়ে

আগামী বছর ‘ষ্পেশাল চাইল্ড’ও থাকবে!

ঢাবি এলামনাই এসোসিয়েশন : শিশু-কিশোরদের প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে একুশের অনুষ্ঠান শুরু

শেখ সিরাজুল ইসলাম: অর্ধ শতাধিক শিশু-কিশোরের সরব উপস্থিতিতে এবং ছবি আঁকা আর কবিতা আবৃত্তির সফল প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শুরু হ’ল মহান একুশে উদযাপনের প্রথম অনুষ্ঠান। জ্যাকসন হাইটসের পিএস ৬৯-এ এটি অনুষ্ঠিত হয়। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসেসিয়েশনের উদ্যোগে এবং বিভিন্ন সংগঠনের সমন্বয়ে সম্মিলিতভাবে প্রতি বছর এই অনুষ্ঠানটির আয়োজন করা হয়। অনুষ্ঠানে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ছাড়াও সম্মিলিতভাবে একুশ উদযাপনের সংশ্লিষ্ট সংগঠনের প্রতিনিধি এবং সংগঠক, অভিভাবক এবং শুভান্যুধায়ীরা উপস্থিত ছিলেন।
দীর্ঘ তের বছর ধরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশনের উদ্যোগে এটা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। ১১ ফেব্রুয়ারী রোববার বেলা বারোটায় শুরু হয়ে মেধা প্রতিযোগীতার এই অনুষ্ঠানটি বেলা চারটা পর্যন্ত চলে। এ সময় চারটি গ্রুপে অর্ধশতাধিক ছাত্র-ছাত্রী তিনটি বিষয়ে প্রতিযোগীতায় অংশ নেয়। এই সময় নিউইয়র্ক সিটির বিভিন্ন স্কুলে অধ্যয়নরত কিন্ডারগার্টেন থেকে শুরু করে দ্বাদশ শ্রেণীর ছাত্র-ছাত্রীরা অংশগ্রহন করে।
প্রতিযোগীতায় শিশু-কিশোরদের অংকন এবং কবিতা আবৃত্তি উপস্থিত দর্শক-শ্রোতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করে। বিশেষ করে রংবেরং এর কালার পেন্সিল ও জল রং দিয়ে আঁকা নৌকা, কুঁড়ে ঘর, নদী, সবুজ মাঠ আর শহীদ মিনারের আঁকা দৃষ্টিনন্দন ছবি দর্শক-শ্রোতা ও আগত অতিথীদের মৃগ্ধ করে। তাছাড়াও শিশু-কিশোরদের বাংলা স্বর ও ব্যঞ্জন বর্ণের লেখা, ইংরেজী থেকে বাংলা অনুবাদ, বাংলা অনুলিখনও সবাইকে মুগ্ধ করে।
নাইন থেকে টুয়েলভ গ্রেডে পড়া ছাত্র-ছাত্রীরা ‘হিষ্ট্রি অব বাংলাদেশ মুভমেন্ট ১৯৪৭-১৯৭১’ শিরোনামে রচনা লিখে উদ্যোক্তা, দর্শক ও বিচারকদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া ফেলে।
সকাল থেকে প্রচন্ড বৃষ্টি ও ঠান্ডা উপেক্ষা করে শিশু-কিশোর ও তাদের অভিভাবকরা পিএস-সিক্সটি নাইনের বিশাল ক্যাফেটেরিয়ায় সমবেত হন। তবে, রোববারের প্রতিযোগীতায় অভিভাবকদের মতো শিশু-কিশোররাও সমান উৎসাহ ও উদ্দীপনায় মেতে উঠেছিল। প্রতিযোগীরা রীতিমতো প্রতিযোগীতায় অবর্তীর্ণ হবার জন্য বাসা বাড়ী থেকে প্রস্তুত হয়ে এসেছিল। উদ্যোক্তাদের পক্ষ থেকে কাগজ-কলম রংতুলি পেন্সিল সরবরাহ করা হলেও প্রতিযোগীদের অনেককেই তা বাসা থেকে আনতে দেখা গেছে।
কবিতা আবৃত্তির অংশে রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘নির্ঝরের স্বপ্নভংগ’ থেকে শুরু করে কবি কাজী নজরুল ইসলামের ‘বিদ্রোহী’ কবিতা, সুকুমার রায়ের বেশ কযেকটি ছড়া, কবি আল মাহমুদ ও আসাদ চৌধুরীর একাধিক কবিতা সহ একাধিক কবিতাসহ বেশ কয়েকটি কবিতা আবৃত্তি করা হয়। যা ছিল অত্যন্ত প্রাণবন্ত ও উপভোগ্য। এসময় অনেকে আবেগ আপ্লুত হয়ে পড়েন।
এর আগে রোববার অপরাহ্নে মেধা প্রতিযোগীতা উদ্ভোধন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশনের সভাপতি স্বপন বড়–য়া। এসময় আরও বক্তব্য রাখেন সাঈদা আক্তার লিলি, এমদাদুল হক ও এ্যানি ফেরদৌস। এসময় বাংলাদেশ ও যুক্তরাষ্ট্রের জাতীয় সঙ্গীত এবং একুশের অমর গান ‘আমার ভাইয়ের রক্তে রাঙানো একুশে ফেব্রুয়ারী’ পরিবেশিত হয়।
অনুষ্ঠান উপস্থাপনায় ছিলেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক গোলাম মোস্তাফা। কবিতা আবৃত্তি প্রতিযোগীতা সঞ্চালন করেন সাবিনা শারমিন নিহার ও রুহুল আমিন। রোববারের প্রতিযোগীতায় সমন্বয় ও সহযোগতিা করেছেন মোহাম্মদ হোসেন খান, তাজুল ইসলাম, মোল্লা মনিরুজ্জামান, গাজী সামসুদ্দিন ও মোহাম্মদ মিজানুর রহমান।
কবিতা আবৃত্তির প্রতিযোগীতায় বিচারক ছিলেন আনোয়ারুল হক লাভলু, শাহরিয়ার তৈয়বুর ও ড. নজরুল ইসলাম। বাংলা লিখন প্রতিযোগীতায় বিচারক ছিলেন হোসনে আরা, কৌশিক আহমেদ ও ফজলুল রহমান। অংকন প্রতিযোগীতায় বিচারক ছিলেন টিপু আলম ও আজিজুর রহমান। অনুষ্ঠানে শিশু-কিশোর, অভিভাবক ও আগত অতিথীদের মধ্যাহ্ন-ভোজে আপ্যায়ন করা হয়।
আগামী ২০ ফেব্রুয়ারী মঙ্গলবার বিকেল পাঁচটায় একুশ উদযাপনের পরবর্তী অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হবে। ঐ দিন কুইন্স প্যালেসে দিবাগত রাতে, একুশের প্রথম প্রহরে অস্থায়ী শহীদ মিনারে ভাষা আন্দোলনের মহান শহীদদের স্মরণে পুষ্পার্ঘ্য অর্পন করা হবে।
এদিকে বার্তা সংস্থা ইউএনএ জানায়, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলামনাই এসোসিয়েশনের উদ্যোগে দীর্ঘ তের বছর ধরে প্রবাসে একুশ স্মরণে শিশু-কিশোরদের জন্য বিভিন্ন প্রতিযোগিতার অয়োজন করলেও কোন বছরই ‘ষ্পেশাল চাইল্ড’-দের জন্য পৃথকভাবে কোন প্রতিযোগিতার আয়োজন না করায় এব্যাপারে প্রতিযোগিতাস্থলে আগম একাধিক অভিভাবক ইউএনএ প্রতিনিধির দৃষ্টি আকর্ষণ করেন এবং আগামী বছর থেকে কমিউনিটির বাংলাদেশী-আমেরিকান ‘ষ্পেশাল চাইল্ড’-দের জন্য পৃথকভাবে কোন প্রতিযোগিতার আয়োজনের দাবী জানান। অভিভাবকদের এই দাবীর ব্যাপারে এসোসিয়েশনের অন্যতম কর্মকর্তা এ্যানী ফেরদৌস এই দাবীর সাথে একাত্তা প্রকাশ করে বলেন, বিষয়টি ভালো উদ্যোগ হবে। আমাদের ‘ষ্পেশাল চাইল্ড’-দের মাছেও অনেক প্রতিভা লুকিয়ে আছে। এবং অনেক ক্ষেত্রে তারাও ভালো করতে পারে। এব্যাপারে তিনি সংগঠনের নেতৃবৃন্দের সাথে পরামর্শ করে আগামী বছর থেকে ‘ষ্পেশাল চাইল্ড’-দের জন্য একুলে প্রতিযোগিতা আয়োজনের আশ্বাস দেন।

এ রকম আরো খবর

‘এ-এইচ ১৬ ড্রিম ফাউন্ডেশন’র স্কুল সাপ্লাই বিতরণ

নিউইয়র্ক: নিউইয়র্ক সিটির চলতি শিক্ষা বছরের অর্ধ শতাধিক শিক্ষার্থীদের মাঝেবিস্তারিত

অটোয়ায় ৩২তম ফোবানা সম্মেলন অনুষ্ঠিত

নিউইয়র্ক (ইউএনএ): কানাডার রাজধানী অটোয়ায় প্রথমবারের মতো অনুষ্ঠিত হলো ৩২তমবিস্তারিত

  • এনএবিসি কনভেনশন ৩২তম না দশম?
  • বোস্টনে ‘৩২তম’ নর্থ আমেরিকা বাংলাদেশ কনভেশন অনুষ্ঠিত
  • হাসান জিলানীর মাতৃবিয়োগ
  • খালেদা জিয়ার মুক্তি দাবীতে নিউইয়র্কে সমাবেশ
  • বাংলাদেশ সোসাইটির নির্বাচন : মুখোমুখি দুই প্যানেল : মনোনয়ন ফি বাবদ আয় ৯৪ হাজার ৫০০ ডলার : স্বতন্ত্র প্রার্থী জয়নাল-সোহেল
  • বিএমএএনএ’র নতুন কমিটি
  • জেএফকেতে গনঅভ্যর্থনার প্রস্তুতি: কমিটি নিয়ে চলছে কানাঘোষা : ২৩ সেপ্টেম্বর নিউইয়র্কে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সংবর্ধনা
  • উত্তর আমেরিকায় পবিত্র ঈদুল আযহা পালিত
  • ৪৩ টি মনোনয়নপত্র বিক্রি ॥ দাখিল ২৬ আগষ্ট
  • ধর্মীয় ভাব-গম্ভীর পরিবেশে নর্থ ক্যারোলিনায় পবিত্র ঈদুল আযহা পালিত
  • নিউইয়র্কের ডাইভারসিটি প্লাজায় পাল্টা-পাল্টি শ্লোগান
  • নোয়াখালী সোসাইটি থেকে সভাপতি রব মিয়ার পদত্যাগ
  • error: Content is protected !! Please don\'t try to copy.