র্সবশেষ শিরোনাম

শনিবার, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০১৯

বাংলা পত্রিকা

Main Menu

সপ্তাহের শুরুতে সম্পূর্ণ নতুন সংবাদ নিয়ে

নির্বাচিত হলে ইমিগ্র্যান্টদের অধিকার আদায়ে কাজ করবো : মিজান চৌধুরী

মোহাম্মদ সোলায়মান: ‘আমি আমেরিকান, আমি ইমিগ্রান্ট, আমি বাংলাদেশী, আমি এশিয়ান। আমরাও পারি এই যুক্তরাষ্ট্রের কংগ্রেসম্যান ও সিনেটর হতে। সেই যোগ্যতা আমাদের আছে। প্রয়োজন শুধু মনোবলের। এই কথা আমি মনে প্রাণে বিশ্বাস করি। ফান্ড রেইজিং ও মতবিনিময় সভায় এভাবেই নিজের দৃঢ় মনোভাব প্রকাশ করলেন নিউইয়র্কের কংগ্রেশন্যাল ডিষ্ট্রিক-৫ এর প্রথম বাংলাদেশী-আমেরিকান কংগ্রেসম্যান প্রার্থী মিজান চৌধুরী। তিনি বলেন, আমি একজন আইটি ইঞ্জিনিয়ার। নিউইয়র্ক সিটির মেইন স্ট্রীমে একজন আইটি ম্যানেজার হিসেবে কাজ করছি। সকল বড় পদে বাংলাদেশী বা ইমিগ্র্যান্টরা কেন আসতে পারবেনা। সেই ভাবনা ও মনোবল থেকেই আমি এবার কংগ্রেসম্যান পদে প্রার্থী হয়েছি। শুধু শুধু নির্বাচন করার জন্য প্রার্থী হইনি, বিজয়ী হওয়ার জন্যই প্রার্থী হয়েছি। প্রথমবারেই বিজয়ী হবো ইনশাল্লাহ। প্রয়োজন শুধু আপনাদের সহযোগিতা। আগামী ২৬ জুন সবাই হাতে হাত ধরে ঘর থেকে বের হয়ে আসুন, জয় আমাদের হবেই ইনশাল্লাহ। সেই মনোবল ও আস্থা আমার আছে। এশিয়ানসহ সকল কমিউনিটির লোক আমার সাথে আছে। সকল কমিউনিটির সমর্থন পেয়েছি।
মিজান চৌধুরী বলেন, আপনাদের সন্তান হিসেবে আমি আপনাদের সম্মান রাখবো। প্রয়োজন শুধুমাত্র ১২ থেকে ১৫ হাজার ভোট। এই ডিষ্ট্রিক এ বাংলাদেশী ভোটারই আছে ১২ হাজার। তাই দেশের সম্মান রক্ষায় সবায় এগিয়ে আসুন। তিনি আরো বলেন নির্বাচিত হলে ইমিগ্র্যান্টদের অধিকার আদায়ে কাজ করবো।
ফ্রেন্ডস অব মিজান’র ব্যানারে গত ১২ মে শনিবার ১২ টা থেকে তিনটায় অনুষ্ঠিত ফান্ড রেইজিং ও মতবিনিময় সভার আয়োজন করেন বাংলাদেশীসহ বিভিন্ন কমিউনিটির প্রতিনিধি হোষ্ট, সাপোটার্স, ফ্রেন্ডস এবং শুভাকাংখীগন। ‘ইট’স টাইম ফর চেঞ্চ’,‘ভোট ফর মিজান’-এই শ্লোগানেই অনুষ্ঠিত হলো কংগ্রেশনাল ডিষ্টিক ৫-এর প্রথম বাংলাদেশী কংগ্রেসম্যান প্রার্থী আইটি ইঞ্জিনিয়ার মিজান চৌধুরীর ফান্ড রেইজিং ও মতবিনিময় প্রানবন্ত অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন মিজান চৌধুরীর ক্যাম্পেইন ম্যানেজার এটর্নী সোমা সাঈদ, কমিউনিটি নেতাদের মডারেটরের দায়িত্ব পালন করেন বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক সেক্রেটারি ফখরুল আলম।
কংগ্রেসম্যান প্রার্থী মিজান চৌধুরীকে সমর্থন জানিয়ে বক্তব্য রাখেন বাংলাদেশ সোসাইটির সাবেক ভাইস প্রেসিডেন্ট মূলধারার নেতা গিয়াস আহমেদ, গত নির্বাচনে সিটি কাউন্সিলম্যান প্রার্থী তৈয়েবুর রহমান হারুন, জ্যাকসন হাইটস বিজনেস এসোসিয়েশনের সভাপতি শাহনেওয়াজ, কমিউনিটি নেতা আজহারুল হক মিলন, মুজিবুর রহমান, আলী ইমাম শিকদার, আবদুল আজিজ ভূঁইয়া, জ্যামাইকা মুসলিম সেন্টারের সাবেক সেক্রেটারী জুন্নুন চৌধুরী, বাংলাদেশ সোসাইটির সম্ভাব্য সভাপতি প্রার্থী কাজী আশরাফ হোসেন নয়ন, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী ও কমিউনিটি এক্টিভিষ্ট আহসান হাবিব, এশিয়ান কমিউনিটি নেতা বিশিষ্ট ব্যবসায়ী মালীক নবী, কারিম মজুমালা, ডা. মর্তুজা হোসাইনী, আমেরিকান ইলেকশান স্পেশালিষ্ট মাথী মার্গান।
সভায় ফখরুল আলম বলেন,মিজান চৌধুরী বিজয়ী হলে সেটা হবে বাংলাদেশীদের বিজয় । তিনি বলেন, বিজয় আমাদের হবেই ইনশাল্লাহ।

এ রকম আরো খবর

  • ভেরাইশপ নামে নতুন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান : অ্যামাজনের প্রতিদ্বন্দ্বী বাংলাদেশের ইমরান
  • নিউইয়র্কে একুশ পালনে ব্যাপক প্রস্তুতি
  • ১৯৭০ সালের ২২ ফেব্রুয়ারী স্মরণে সভা ২২ ফেব্রুয়ারী
  • রিদম আয়োজিত ‘ভালোবাসার রেশ’ অনুষ্ঠান ১৭ ফেব্রুয়ারী
  • অমুসলিম হয়েও ধর্মবিদ্বেষের শিকার বাংলাদেশী বরুন চক্রবর্তী
  • বাংলা পত্রিকা ১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ সংখ্যা
  • সিলেটে কুহিনুর আহমদকে গ্রেফতারের নিন্দা ও মুক্তি দাবী
  • ক্ষমতা নিয়ে ইসি-ট্রাষ্টি বোর্ডের মধ্যে টাগ অব ওয়ার
  • মডেলিং সহজ কাজ নয়, চাই আতœবিশ্বাস
  • নারী আসনে মনোনয়ন চান মোমতাজ-ফরিদা
  • ‘বিএনপি রাষ্ট্রীয় সন্ত্রাসের শিকার
  • নতুন ভবণ ও ফিউনারেল হোমন প্রতিষ্ঠান পরিকল্পনা
  • error: Content is protected !! Please don\'t try to copy.