র্সবশেষ শিরোনাম

বুধবার, জানুয়ারি ২৩, ২০১৯

বাংলা পত্রিকা

Main Menu

সপ্তাহের শুরুতে সম্পূর্ণ নতুন সংবাদ নিয়ে

সংলাপ কারও কাছে ফলপ্রসূ, কেউ নাখোশ

ঢাকা: আওয়ামী লীগের সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে সাড়ে তিন ঘণ্টার সংলাপের পর জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট আনুষ্ঠানিক বক্তব্য জানিয়েছে। ভবিষ্যতে আলোচনা অব্যাহত থাকবে বলে আশাপ্রকাশ করেছে ঐক্যফ্রন্ট। তবে এই জোটের অন্যতম শরিক দল বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর স্পষ্ট করেই জানিয়ে দিয়েছেন, ‘আমি খুব সন্তুষ্ট নই।’ বৃহস্পতিবার রাজধানীর গণভবনে সন্ধ্যা সাতটার দিকে সংলাপ শুরু হয়ে চলে রাত সাড়ে ১০টা পর্যন্ত। আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ১৪ দলীয় জোটের ২৩ নেতার সঙ্গে সংলাপে অংশ নেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ২০ নেতা। ঐক্যফ্রন্টের নেতৃত্ব দেন ড. কামাল হোসেন। তাঁর সঙ্গে ছিলেন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ দলটির কয়েকজন জ্যেষ্ঠ নেতা।
সংলাপ শেষে ঐক্যফ্রন্টের নেতারা গণভবন থেকে বের হওয়ার পর পরই গণমাধ্যমকর্মীরা তাঁদের ছেঁকে ধরেন। তবে ঐক্যফ্রন্টের নেতারা মুখ খুলতে নারাজ ছিলেন। অবশ্য সেদিক থেকে উদার ছিলেন ১৪ দলীয় জোটের পক্ষ থেকে সংলাপে অংশগ্রহণকারীরা। আওয়ামী লীগের সভাপতিমন্ডলীর কাজী জাফর উল্যাহ সাংবাদিকদের বলেন, ‘বিএনপি সাত দফার কথা বলেছে। আমরা তাদের কথা শুনেছি। আলোচনা ফলপ্রসূ হয়েছে। বরফ গলতে শুরু করেছে।’
বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুলের কথায় অবশ্য বরফ গলার আশা পাওয়া যায়নি। প্রথমে রাজি না হলেও শেষে গাড়িতে বসেই একটুকরো মন্তব্য করেন তিনি। মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমি সন্তুষ্ট নই।’ পরে ড. কামাল হোসেনের বাসায় আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনেও একই কথা বলেন তিনি। তবে মির্জা ফখরুল এও বলেছেন, ‘একদিনে সব পাওয়া যায় না।’
গণভবনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ১৪ দলীয় জোট নেতাদের সঙ্গে সংলাপে অংশ নেন ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের নেতারা। ছবি: পিআইডি
অন্যদিকে বার্তা সংস্থা ইউএনবির খবরে বলা হয়েছে, সংলাপ থেকে বের হয়ে গাড়িতে ওঠার সময় ড. কামাল সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, সংলাপ ভালো হয়েছে। তবে সংলাপে কী কী বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়েছে তা তিনি উল্লেখ করেননি। বিবিসি বাংলা জানায়, বেরিয়ে যাওয়ার সময় ড. কামাল হোসেন শুধু এটুকুই বলেছেন যে, ‘ভালো আলোচনা হয়েছে।’
তবে এর কিছু সময় পর বৃহস্পতিবার রাতে নিজ বাসভবনে আয়োজিত সাংবাদিক সম্মেলনে ড. কামাল জানান, দুই পক্ষের মধ্যে আলোচনা হয়েছে। দুই পক্ষই একে-অপরের কথা শুনেছে। একপর্যায়ে তিনি বলেন, ‘…প্রধানমন্ত্রী বেশ লম্বা বক্তৃতা দিলেন। কিন্তু বিশেষ কোনো সমাধান আমরা পাইনি।’
গণভবনে যাওয়ার জন্য ঐক্যফ্রন্ট প্রথমে ১৬ জন নেতার নাম জানিয়েছিল। পরে আজ এই জোট নতুন করে পাঁচ সদস্যের নামের তালিকা আওয়ামী লীগের কাছে পাঠায়। গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফা মহসীন মন্টু স্বাক্ষরিত এক বিবৃতিতে সংলাপের জন্য সর্বমোট ২১ সদস্যের প্রতিনিধি দল যোগদানের কথা বলা হয়। তবে শেষ পর্যন্ত বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় সংলাপে যোগ দেননি।
জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের সঙ্গে আরও আলোচনা হতে পারে কিনা, তা ৮ তারিখের পর জানা যাবে বলে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের। সংলাপ শেষে গণভবনে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।
এদিকে আলোচনা কি আজই শেষ? না আরও হবে, সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে বাণিজ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের উপদেষ্টামন্ডলীর সদস্য তোফায়েল আহমেদ বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, যেকোনো জায়গায় যেকোনো সময় আলোচনা হতে পারে। আমরা তাদের নির্বাচনে অংশ নেওয়ার কথা বলেছি।’
আলোচনা চালিয়ে যাওয়ার আভাস দিয়েছে ঐক্যফ্রন্টও। ভবিষ্যতে আলোচনা অব্যাহত থাকবে বলে আশা প্রকাশ করেছে এই জোট। বিএনপি সন্তুষ্ট না হলেও, হাল ছাড়েনি। অন্যদিকে ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম শরিক দল জেএসডির সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেছেন, ‘সাত দফা নিয়ে আন্দোলন অব্যাহত থাকবে।’

এ রকম আরো খবর

চলে গেলেন আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুল

বাংলা পত্রিকা ডেস্ক: প্রখ্যাত সঙ্গীত পরিচালক, গীতিকার, সুরকার ও বীরবিস্তারিত

শহীদ জিয়ার ৮৩তম জন্মবার্ষিকী ১৯ জানুয়ারী

ঢাকা ডেস্ক: বাংলাদেশের স্বাধীনতার ঘোষক, বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা, সাবেক রাষ্ট্রপতি ওবিস্তারিত

  • এফডিসি ও ঢাকার নাটকপাড়া এখন শূন্য : সব নায়িকাই এমপি হতে চায়
  • পাকিস্তানে পিটিএম : আরেকটি ‘বাংলাদেশ’ গড়ে উঠছে?
  • টিআইবির গুরুতর অভিযোগ : যা করতে পারে নির্বাচন কমিশন?
  • টিআইবি’র প্রতিবেদন প্রত্যাখ্যান সিইসির
  • ৫০ আসনের মধ্যে রাতেই ৩৩ আসনে ব্যালটে সিল ॥ ৪৭ আসনেই অনিয়ম
  • শেখ হাসিনা এমন নির্বাচন না করলেও পারতেন
  • প্রবীণ সাংবাদিক আমানুল্লাহ কবীর আর নেই
  • মানবকণ্ঠের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আবু বকর চৌধুরী মারা গেছেন
  • হাসিনার কারচুপির নির্বাচনের বিরুদ্ধে একাট্টা পশ্চিমাবিশ্ব
  • মন্ত্রী সৈয়দ আশরাফুল ইসলাম আর নেই
  • শুভ নববর্ষ-২০১৯
  • চার আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমের দৃষ্টিতে বাংলাদেশের নির্বাচন
  • error: Content is protected !! Please don\'t try to copy.