র্সবশেষ শিরোনাম

শনিবার, নভেম্বর ১৭, ২০১৮

বাংলা পত্রিকা

Main Menu

সপ্তাহের শুরুতে সম্পূর্ণ নতুন সংবাদ নিয়ে

ট্রাম্পের সামনে অনেক বাধা আছে অভিশংসনের ভয়ও

বাংলা পত্রিকা ডেস্ক: যুক্তরাষ্ট্রের মধ্যবর্তী নির্বাচনের মধ্য দিয়ে কংগ্রেসের নিম্নকক্ষের নিয়ন্ত্রণ ডেমোক্র্যাটদের হাতে চলে যাওয়াটা প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের জন্য আশঙ্কার কারণ তো বটেই, সেই সঙ্গে সম্ভাবনাও একেবারে কম নয়। আশঙ্কা সম্পর্কে পর্যবেক্ষকরা বলছেন, নিজের সব পরিকল্পনা বাস্তবায়নে বাধা পাওয়া থেকে শুরু করে প্রেসিডেন্টের অভিশংসিত হওয়ার ঝুঁকি পর্যন্ত থাকছে। এর বিপরীতে মধ্যবর্তী নির্বাচনের এ ফলাফল ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রিপাবলিকানদের জন্য সুফল বয়ে আনতে পারে।
গত মঙ্গলবার অনুষ্ঠিত মধ্যবর্তী নির্বাচনের ভোট গণনায় দেখা গেছে, কংগ্রেসের নিম্নকক্ষ হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভে ৫০ শতাংশের বেশি আসন নিশ্চিত করেছে ডেমোক্র্যাটরা। আর উচ্চকক্ষ সিনেটের নিয়ন্ত্রণ গেছে রিপাবলিকানদের হাতে। নির্বাচনপূর্ব জরিপগুলো এ রকম আভাসই দিয়েছিল। নিম্নকক্ষের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মোটেই বিচলিত নন ট্রাম্প। উল্টো তিনি টুইট করেছেন, ‘আজ (মঙ্গলবার) রাতে অসাধারণ সাফল্য এসেছে। আপনাদের সবাইকে ধন্যবাদ।’
প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প নিজেকে খোশমেজাজে দেখানোর চেষ্টা করলেও নিজের সব পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করতে গিয়ে তিনি যে হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভে বাধার মুখে পড়বেন, তা নিয়ে পর্যবেক্ষকদের আর কোনো সন্দেহ নেই। বরং ডেমোক্র্যাটরা এখন নিজেদের এজেন্ডা বাস্তবায়নে আশার আলো দেখছে।
যুক্তরাষ্ট্রের প্রভাবশালী সংবাদমাধ্যমগুলো বলছে, আইন প্রণয়ন ও প্রশাসনিক কর্মকান্ড পরিচালনা উভয় ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়বেন প্রেসিডেন্ট। এসব কাজে তাঁকে আগামী দুই বছর নিম্নকক্ষে আধিপত্যকারী ডেমোক্র্যাটদের মুখাপেক্ষী হয়ে থাকতে হবে। এ ছাড়া ২০১৬ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপ নিয়ে ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠজনদের বিরুদ্ধে যে তদন্ত চলছে, সেটা নিয়েও আরো সংকটে পড়তে পারেন তিনি। কেননা হাউস ইন্টেলিজেন্স কমিটির নিয়ন্ত্রণ এখন পুরোপুরি ট্রাম্পবিরোধী শিবিরের হাতে থাকছে। নিজের ব্যবসা প্রতিষ্ঠানের কর প্রদানের যেসব তথ্য এত দিন তিনি গোপন রাখতে পেরেছেন, এবার তাতেও হাত পড়তে পারে বলে পর্যবেক্ষকদের ধারণা।

নির্বাচনে জয়ের খবরে উল্লসিত ডেমোক্র্যাট শিবিরের সমর্থকরা। মঙ্গলবার রাতে ওয়াশিংটন থেকে তোলা ছবি। ছবি : এএফপি
এখানেই শেষ নয়। সর্বোচ্চ বিপদটা ট্রাম্পের ঘাড়ে আসতে পারে অভিশংসনের মাধ্যমে। ডেমোক্র্যাট নিয়ন্ত্রিত হাউস অব রিপ্রেজেন্টেটিভে সংখ্যাগরিষ্ঠের ভোটে খুব সহজেই তিনি অভিশংসনের শিকার হতে পারেন। বিশ্লেষকরা বলছেন, স্পেশাল কাউন্সিলর রবার্ট মুয়েলারের তদন্তে যদি গত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে ট্রাম্পের ঘনিষ্ঠজনদের সঙ্গে রুশ আঁতাতের অভিযোগ প্রমাণিত হয়, তবে ট্রাম্পের পতন ঘটাতে সময় লাগবে না।
এত আশঙ্কার মধ্যেও রিপাবলিকান শিবিরের জন্য এখনো আশার আলো দেখছেন পর্যবেক্ষকরা। কারণটা হলো সিনেটে তাদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা। প্রশাসনের শীর্ষ পদগুলোতে নিয়োগদানের ক্ষেত্রে প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পকে সিনেটে কোনো বাধা পেতে হবে না। আর বিচার বিভাগে তিনি এরই মধ্যে নিয়ন্ত্রণ নিশ্চিত করেছেন। এ পর্যন্ত তিনি ৮৪ জন পছন্দের বিচারক নিয়োগ দিয়েছেন। তাঁদের মধ্যে সুপ্রিম কোর্টের দুই বিচারপতিও রয়েছেন। সর্বোচ্চ আদালতের বেঞ্চে বর্তমানে যে চারজন উদারপন্থী সদস্য রয়েছেন, আগামী দুই বছর তাঁদের টিকে থাকা নিয়েই বরং শঙ্কায় আছে ডেমোক্র্যাটরা। এ ছাড়া গত প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে রুশ হস্তক্ষেপের অভিযোগের তদন্তকারী মুয়েলারকে সরিয়ে দিতেও ট্রাম্পকে বেগ পেতে হবে না।
মধ্যবর্তী নির্বাচনে নিম্নকক্ষের নিয়ন্ত্রণ বিরোধী শিবিরের হাতে চলে যাওয়ার আরেকটি সুফল সম্ভবত পেতে যাচ্ছে রিপাবলিকানরা, এমন ধারণা করছেন বিশ্লেষকরা। তাঁদের মতে, দেশে সব ধরনের অবনতি আর অঘটনের দায় এখন থেকে সহজেই ডেমোক্র্যাটদের ঘাড়ে চাপাতে পারবেন ট্রাম্প। আর এর মাধ্যমে ২০২০ সালের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রচারে নিজ দলের পক্ষে সমর্থন আদায় করা তাঁর পক্ষে তুলনামূলক সহজ হবে এবং প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে জয় পেলে সেটিই হবে তাঁর চূড়ান্ত অর্জন।
সর্বোপরি গত মঙ্গলবারের নির্বাচনের ফলাফলের কারণে ট্রাম্পের আচরণে ইতিবাচক পরিবর্তনের প্রত্যাশা করছেন পর্যবেক্ষকরা। তাঁদের ধারণা, সব সময় দাম্ভিক স্বরে কথা বলা প্রেসিডেন্ট এবার কংগ্রেসের অর্ধাংশের নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খানিকটা ন¤্র আর বিনীত হবেন। তাঁদের এমন ধারণার ভিত্তি আছে বৈকি। নিম্নকক্ষের সম্ভাব্য নতুন স্পিকার ন্যান্সি পেলোসির ডেপুটি চিফ অব স্টাফ ড্রিউ হ্যামিল টুইট করে জানিয়েছেন, নির্বাচনী ফলাফল মোটামুটি নিশ্চিত হওয়ার পর পেলোসিকে ফোন করে শুভেচ্ছা জানিয়েছেন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প। সূত্র: সিএনএন, বিবিসি, এএফপি।

এ রকম আরো খবর

বিএনপির পাশে চীন, অভিযোগ হাসিনার দলের

নয়াদিল্লি: ভোটের ঘণ্টা বেজে যাওয়া বাংলাদেশের রাজনৈতিক প্রক্রিয়ায় এ বারবিস্তারিত

  • ক্যালিফোর্নিয়ায় ভয়াবহ দাবানলে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৫০
  • ক্যালিফোর্নিয়ায় দাবানলে নিহতের সংখ্যা বেড়ে ৩১
  • যে কারণে মার্কিন মধ্যবর্তী নির্বাচন গুরুত্বপূর্ণ
  • কারাগার থেকে ছাড়া পেলেন আসিয়া বিবি
  • ‘ইতিহাস গড়তে আসিনি, আমরা পরিবর্তনের জন্য এসেছি’
  • ‘আমিই ইউএস কংগ্রেসে প্রথম হিজাবধারী মুসলিম নারী’
  • নিম্নকক্ষে ডেমোক্রেটদের বিজয়
  • আলোচিত বিজয়ী  যারা
  • সিনেটে রিপাবলিকানদের জয় প্রতিনিধি পরিষদ ডেমোক্রেটদের
  • অভিবাসী ভীতি ও অর্থনীতিই মূল হাতিয়ার প্রেসিডেন্টের : বর্ণবাদের দ্বন্দ্বই ট্রাম্পের মূলধন : মঙ্গলবার বদলে যেতে পারে ট্রাম্প-আমেরিকা
  • হাডসন নদীতে দুই সউদী বোনের লাশ!
  • error: Content is protected !! Please don\'t try to copy.