র্সবশেষ শিরোনাম

বুধবার, এপ্রিল ২৪, ২০১৯

বাংলা পত্রিকা

Main Menu

সপ্তাহের শুরুতে সম্পূর্ণ নতুন সংবাদ নিয়ে

নিউইয়র্কের ৪১% মানুষ জীবন চালাতে হিমশিম খাচ্ছে : জরিপ

বিশেষ প্রতিনিধি: অভিবাসীদের অঙ্গরাজ্য হিসেবে সবার প্রথম পছন্দ যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক সিটি। এই নিউইয়র্কে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধিতে জনজীবনে ভোগান্তি চরম পর্যায়ে পৌছেছে। স্বাভাবিক জীবন চালাতে হিমশিম খাচ্ছেন নিউইয়র্কের ৪১% মানুষ। সম্প্রতি প্রকাশিত এক জরিপে এই তথ্য জানা গেছে। কানেকটিকাটের কুইনিপিক ইউনিভার্সিটি গত ২০ মার্চ বুধবার তাদের জরিপ প্রকাশ করে। গত ১৩ মার্চ থেকে ১৮ মার্চ পরিচালিত জরিপে ১,২১৬ জন রেজিষ্টার্ড ভোটারের মতামত গ্রহণ করা হয়।
নিউইয়র্ক সিটি সহ অঙ্গরাজ্যবাসীদের উপর পরিচালিত জরিপে ৪১% মানুষ বলেছেন উচ্চমূল্যের বাসা ভাড়া সহ নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধি পাওয়ায় স্বাভাবিক জীবন চালাতে হিমশিম খেতে হচ্ছে। গত মে মাসে পরিচালিত জরিপে ৩১ ভাগ মানুষ নিউইয়র্ক ত্যাগ করে অন্য রাজ্যে চলে যাওয়ার কথা বলেছেন। নিউইয়র্কে ট্যাক্স সহ বাসাবাড়ীর মূল্য ও ভাড়া বৃদ্ধির ফলে অনেকে আর অ্যাফোর্ড করতে পারছেন না। তাছাড়া শিশু-কিশোরদের ব্যয়ও বেড়ে চলেছে। সবমিলিয়ে অনেকেই ফ্লোরিডা, টেক্সাস, ওরিগণ, ভার্জেনিয়া, মেরিল্যান্ড অঙ্গরাজ্যে চলে যাওয়ার চিন্তা-ভানা করছেন।
অনুসন্ধানে জানা গেছে, নিউইয়র্কের ম্যানহাটানে গড়ে এক বেডরুমের বাসা ভাড়া ৩,১১৬ ডলার। অপরদিকে অন্যান্য বরোতে এক বেডরুমের বাসা ভাড়া গড়ে ১,৯৯৮ ডলার। সিটির একটি মিডিল ক্লাসের রেষ্টুরেন্টে দুজনের খাবারে মূল্য দাঁড়ায় ৮০ ডলার। অপরদিকে এক গ্যালন গ্যাসের মূল্য ৩ ডলারের উপর। গড়ে উবার-এর ফেয়ার দাঁড়ায় ২২ ডলার।
জরিপে অংশ নেয়া অনেকেই অতিরিক্ত জনবহুল শহর হিসেবে নিউইয়র্ক সিটিতে শিক্ষার মান কমে যাওয়ারও অভিযোগ এসে তাদের সন্তানদের উচ্চ শিক্ষা আর ভালো জীবনযাপনের জন্য অন্য রাজ্যে চলে যাওয়ার কথা ভাবছেন। আবার অনেকের মতে তুলনামুলকভাবে শেতাঙ্গদের তুলনায় অন্যান্য বর্ণের মানুষ আর্থিকভাবে অস্বচ্ছলতার শিকার হচ্ছেন। এই অঙ্গরাজ্যের ৭৭ ভাগ সাদা কালারের মানুষ আর্থিকভাবে ‘গুড’ অথবা ‘এক্সিলেন্ট’। অপরদিকে ৪৪ ভাগ ননহোয়াইটদের মতে তারা ‘নট সো গুড’।
নিউইয়র্কের কুইন্স বরোর ফরেস্টহীলে জন্মগ্রহণকারী প্যারালীগ্যাল অরি বুইটরন (৪৯) জরিপে অংশ নিয়ে বলেন, নিউইয়র্ক সিটিবাসী তাদের মেধা-শ্রম দিয়ে সিটিকে শক্তিশালী করলেও সিটির অধিকাংশ মানুষ মধ্যবৃত্ত শ্রেণীর জীবন-যাপন করছে। আবাসস্থলের মুল্য ও ভাড়া সহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধির ফলে তার অনেক বন্ধু নিউইয়র্ক ছেড়ে ফ্লোরিডা, টেক্সাস, ওরিগণ প্রভৃতি অঙ্গরাজ্যে চলে গেছেন। তিনি বলেন, সিটিতে এক গ্যালন দুধের দাম ৫ ডলার। এতো চড়ামূল্যে জীবন চলতে পারে না। বিগত ৫ বছর ধরেই ক্রমশ: দ্রব্যমূল্য বৃদ্ধি পাচ্ছে।
ফরেস্টহীলে বসবাসকারী ডেক্সটার বেঞ্জামিন (২৮) নামের একজন বলেছেন, তার পরিবার সম্মতি দিলেই তিনি নিউইয়র্ক ছেড়ে ফ্লোরিডা বা টেক্সাস চলে যাবেন।
ম্যানহাটানের ডাউনটাউনে কর্মরত রবার্ট কারপেন্টার (৫০) নামের একজন বলেছেন, আমি নিউজার্সীতে বসবাস করছি এবং কর্মস্থলে আসতে সময় লাগে মাত্র ১৫ মিনিট। নিউইয়র্কের চেয়ে নিউজার্সীতে জীবন যাত্রার ব্যয় কম। ফলে প্রতি মাসে আমি ৩০০ ডলার সাশ্রয় করতে পারি।

এ রকম আরো খবর

শ্রীলঙ্কায় রক্তবন্যা : নিহত বেড়ে ২০৭

বাংলা পত্রিকা ডেস্ক: দ্বীপ রাষ্ট্র শ্রীলঙ্কায় গীর্জা এবং বিলাসবহুল হোটেলবিস্তারিত

‘ইনফিনিটি অ্যাওয়ার্ড’ পেলেন বাংলাদেশের শহীদুল আলম

সালাহউদ্দিন আহমেদ: বাংলাদেশের কিংবদন্তি আলোকচিত্রী, বিশ্বখ্যাত ‘টাইম’ ম্যাগাজিনের ২০১৮ সালেরবিস্তারিত

  • ইয়েলো ক্যাবী বিন্দার সিং ছুরিকাহত
  • নিউজিল্যান্ডে মসজিদে হামলা : নিহত বেড়ে ৪৯
  • বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত আইএসের শামীমা নাগরিকত্ব হারাচ্ছেন
  • সীমান্তে জরুরি অবস্থা জারি ট্রাম্পের
  • সংসদ নির্বাচন: বাংলাদেশে গণতন্ত্র রক্ষায় ট্রাম্প প্রশাসনকে পদক্ষেপ নেবার আহ্বান ইউএস কংগ্রেসের
  • ডন পত্রিকার কলাম : ‘বাংলাদেশ পাকিস্তানকে পেছনে ফেলেছে যেভাবে’
  • ৬ বছরের মধ্যে আমেরিকান সেনাবাহিনীতে আত্মহত্যার হার সর্বোচ্চ
  • পিছু হটলেন ট্রাম্প!
  • জাতিসংঘের সাথে বাংলাদেশ অত্যন্ত ঘনিষ্ট সম্পর্ক বজায় রেখে চলেছে : রাষ্ট্রদূত মোমেন
  • শীর্ষ ১০ নিরাপত্তা চিন্তাবিদের তালিকায় শেখ হাসিনা
  • পাকিস্তানে পিটিএম : আরেকটি ‘বাংলাদেশ’ গড়ে উঠছে?
  • error: Content is protected !! Please don\'t try to copy.