র্সবশেষ শিরোনাম

বুধবার, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৭

বাংলা পত্রিকা

Main Menu

সপ্তাহের শুরুতে সম্পূর্ণ নতুন সংবাদ নিয়ে

বাপা’র টাউন হল মিটিংয়ে পুলিশ কমিশনার জেমস পি. ও’নিল

বাংলাদেশী পুলিশ-ই ভবিষ্যতে এনওয়াইপিডিকে নেতৃত্ব দেবে ॥ নিউইয়র্ক সিটি সব মানুষের নিরাপদ আবাসস্থল

নিউইয়র্ক: নিউইয়র্ক সিটির পুলিশ কমিশনার জেমস ও’নীল বলেছেন, নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্টে কর্মরত বাংলাদেশী পুলিশ কর্মকর্তার-ই ভবিষ্যতে এই এনওয়াইপিডি-কে নেতৃত্ব দেবে। দক্ষতা, নিষ্ঠা আর সততা দিয়ে তারা যেভাবে সফলতার সঙ্গে এগিয়ে যাচ্ছে তাতে এনওয়াইপিডি’র সর্বোচ্চ পদ খুব বেশি দূরে নয় বলে তিনি মন্তব্য করে বাংলাদেশী পুলিশ কর্মকর্তাদের প্রশংসা করেন। জেমস পি. ও’নিল বলেন, নিউইয়র্ক সিটি সব মানুষের নিরাপদ আবাসস্থল। আর আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে সব কমিউনিটির সম্পৃক্ততার কারণেই এই সিটিকে নিরাপদ রাখা সম্ভব হয়েছে। তিনি বলেন, নিউইয়র্ক সিটির আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় শুধু এনওয়াইপিডি নয়, সব ধরনের আইন প্রয়োগকারী সংস্থাই কাজ করছে।
উল্লেখ্য, বৈচিত্র, ঐক্য আর নিরাপত্তা-মূলত এ তিনটি বিষয়কে আদর্শ ধরে ২০১৫ সালে প্রতিষ্ঠিত হয় বাংলাদেশ আমেরিকা পুলিশ এসোসিয়েশন। নিউইয়র্ক পুলিশ ডিপার্টমেন্টে বর্তমানে প্রায় এক হাজার বাংলাদেশী  বংশোদ্ভ’ত পুলিশ কর্মকর্তা দায়িত্ব পালন করছেন। তারা যেমন দায়িত্ব পালনে যেমন নিষ্ঠাবান, তেমনি বাংলাদেশী কমিউনিটির প্রতিও দায়িত্বশীল। তাদের দক্ষতা আর পুলিশ বিভাগে ক্রমশ পদোন্নতির প্রশংসা করেন পুলিশ কমিশনার ও নীল।
নিউইয়র্কে বাংলাদেশী বংশোদ্ভূত পুলিশ সদস্যদের সংগঠন ‘বাংলাদেশী আমেরিকান পুলিশ অ্যাসোসিয়েশন (বাপা)-এর দ্বিতীয় বার্ষিক টাউন হল মিটিংয়ে নিউইয়র্ক পুলিশ কমিশনার জেমস পি. ও’নিল উপরোক্ত কথা বলেন। গত ৫ জুন সোমবার বিকালে নিউইয়র্কে জ্যাকসন হাইটসের বেলাজিনো পার্টি হলে অনুষ্ঠিত এই টাউন হল মিটিংয়ে বাংলাদেশী কমিউনিটির নানা শ্রেণীপেশার মানুষেরা অংশ নেন। আরো উল্লেখ্য, বাপা’র এ আয়োজনের মধ্য দিয়ে নিউইয়র্কে মূলধারা, বিশেষ করে নিউইয়র্ক পুলিশ বিভাগের সঙ্গে বাংলাদেশী কমিউনিটির সরাসরি যোগসূত্র স্থাপিত হলো। অনুষ্ঠানে ইমিগ্রেশন ও হেইট ক্রাইমসহ নানান বিষয়ে প্রবাসীরা পুলিশ কমিশনারের কাছ থেকে সরাসরি তথ্য জানার সুযোগ পানন। বাপা’র এমন আয়োজন ব্যাপক প্রশংসিত হয় কমিউনিটিতে। এসময় ইমিগ্রেশন ও হেইট ক্রাইম থেকে শুরু করে গৃহবিবাদ সংক্রান্ত নানা প্রশ্ন ও প্রস্তাবনা তুলে ধরেন প্রবাসীরা। পুলিশ কমিশনার জেমস ও’নিল তাদের প্রশ্নের সরাসরি উত্তর দেন। নিউইয়র্ক সিটিজুড়ে আরো বেশী বাংলা ভাষাভাষী পুলিশ অফিসার নিয়োগের আহ্বান জানান কমিউনিটি নেতৃবৃন্দ। পুলিশ কমিশনার এ বিষয়টি গুরুত্বের সঙ্গে বিবেচনার আশ্বাস দেন। তিনি বলেন, আমরা ভবিষ্যতে ভিন্ন ভাষাভাষী পুলিশ অফিসারের সংখ্যা আরো বাড়াবো এবং এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ, যদি কেউ তার মাতৃভাষার মাধ্যমে সেবা পায়।
টাউন হল সভায় সভাপতিত্ব করেন বাপা’র প্রেসিডেন্ট সার্জেন্ট সুমন সাঈদ। সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক হুমায়ূন কবীরের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটে নিযুক্ত কনসাল জেনারেল মো. শামীম আহসান, সিটির ১১৫ প্রিসিঙ্কটের কমান্ডিং অফিসার ইন্সপেক্টর মিশেল ইরিজারি, কুইন্স বরোর (নর্থ) কমান্ডিং অফিসার ও অ্যাসিস্ট্যান্ট চিফ জুয়ানিতা হোমস, কুইন্স বরোর (সাউথ) কমান্ডিং অফিসার ও অ্যাস্ট্যিান্ট চিফ ডেভিড বেরিরি, হেইট ক্রাইম টাস্ক ফোর্সের ক্যাপ্টেন ও ডেপুটি ইন্সপেক্টর মার্ক সি. মলিনারি, বাপা’র ভাইস প্রেসিডেন্ট লে. শামসুল হক প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে উল্লেখযোগ্য ব্যক্তিবর্গের মধ্যে মধ্যে বাপা’র ভাইস প্রেসিডেন্ট লে. সুজাত খান, মিডিয়া লিয়াঁজো সার্জেন্ট প্রিন্স আলম, ট্রাস্টি ডিটেকটিভ জামিল সারোয়ার জনি, পুলিশ অফিসার সরদার মামুন, পুলিশ অফিসার আব্দুল লতিফ, পুলিশ অফিসার মোল্লা সাঈদ, পুলিশ অফিসার মাহবুব রহমান প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে পুলিশ কমিশনার সম্প্রতি নিউইয়র্কে অপরাধ প্রবণাতা কমার বিষয়টি উল্লেখ করে হেইট ক্রাইমসহ সব ধরণের অপরাধ কমাতে কমিউনিটির সহযোগীতা চান। কোথাও কোনও সন্দেহজনক কিছু দেখলে তা পুলিশকে জানানোর পরামর্শ দেন। সম্প্রতি ইউরোপের দেশগুলোতে একের পর এক সন্ত্রাসী হামলার পর নিউইয়র্কারদের জন্য কি ধরণের নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হয়েছে তারও ফিরিস্তি দেন পুলিশ কমিশনার। প্রসঙ্গত তিনি বলেন, বিশ্বব্যাপী যে সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চলছে তার কারণে সাধারণ মুসলমানরা হেইট ক্রাইমের শিকার হচ্ছে। আর হেইট ক্রাইম প্রতিরোধে নিউইয়র্ক পুলিশ বিভাগের দৃঢ় প্রত্যয়ের কথা ব্যক্ত করে তিনি বলেন, এই শহরের সবাই নিরাপদ।
অনুষ্ঠানে আনডকুমেন্টেড ইমিগ্র্যান্ট বা বৈধ কাগজপত্রহীন কাউকে গ্রেপ্তার সম্পর্কিত এক প্রশ্নের উত্তরে জেমস ও’নিল বলেন, ইমিগ্রেশন সংক্রান্ত আইন প্রয়োগ করা নিউইয়র্ক পুলিশের কাজ নয়। অপরাধে জড়িত বা সাক্ষ্য প্রদানকারী কাউকে আমরা তার ইমিগ্রেশন স্ট্যাটাস সম্পর্কে প্রশ্ন করি না।
নিউইয়র্ক সিটিকে সম্ভাব্য সন্ত্রাসী হামলা মুক্ত রাখা সংক্রান্ত অপর এক প্রশ্নের জবাবে পুলিশ কমিশনার বলেন, নিউইয়র্ক পুলিশ, এফবিআই এবং স্টেট পুলিশের সমন্বয়ে গঠিত জয়েন্ট টেরোরিজম ট্রাস্কফোর্স প্রতিনিয়ত বিভিন্ন হুমকিগুলো পর্যবেক্ষণ করছে শহরকে সুরক্ষা করার জন্য। নিউইয়র্ক পুলিশ বিভাগে মুসলমানদের ওপর নজরদারি সম্পর্কিত এক প্রশ্নের জবাবে পুলিশ কমিশনার বলেন, ‘মুসলিম সার্ভিলেন্স’ নামে কোনো বিভাগ নিউইয়র্ক পুলিশ বিভাগে এখন চালু নেই। বিশেষ কোনো কারণ ছাড়া পুলিশ তদন্ত শুরু করে না। এমনকী পুলিশ কোনো মসজিদকে লক্ষ্য করে না। তবে সন্দেহজনক আচার আচরণকে লক্ষ্য করেই নজরদারি করা হয়।
অনুষ্ঠানে মো. শামীম আহসান নিউইয়র্কে বাংলাদেশীদের সততা ও শান্তি প্রিয়তার কথা তুলে ধরে বলেন, বাংলাদেশীরা এখানে কঠোর পরিশ্রম করছেন। তারা এ দেশের আইন মেনে চলছেন। যা দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে।
সার্জেন্ট সুমন সাঈদ বলেন, মাত্র বছর দশক আগেও এনওয়াইপিডি-তে বাংলাদেশী পুলিশ কর্মকর্তা ছিলো একেবারে হাতে গোনা। কিন্তু বর্তমানে তারাই মাইনরিটি কমিউনিটির মধ্যে বেশি সংখ্যক সদস্য। এই সদস্যরা কিভাবে পড়ালেখা আর কঠোর পরিশ্রম করে নিজেদের আরো যোগ্য করে তুলছেন তার ফিরিস্তি দেন। তিনি বলেন, আমাদের কমিউনিটিকে সহায়তা করতেই এমন অনুষ্ঠানের আয়োজন। কারণ নিউইয়র্ক পুলিশ বিভাগের সহায়তা করার মত অনেক উপায় রয়েছে। এটা আমাদের দ্বিতীয় বার্ষিক টাউন হল মিটিং। আগামীতেও টাউন হল মিটিং অব্যাহত রাখা হবে।

এ রকম আরো খবর

বাগ’র লবি ডে ১৩ মার্চ

বাংলা পত্রিকা রিপোর্ট: বাংলাদেশী-আমেরিকান এডভোকেসী গ্রুপ (বাগ) ইনক-এর উদ্যোগে বিগতবিস্তারিত

কানেকটিকাট বিশ্ববিদ্যালয়ে কাজী নজরুল ইসলাম চেয়ার প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ফান্ড রেইজিং অনুষ্ঠিত

সালাহউদ্দিন আহমেদ: ‘বিদ্রোহী কবি’ নামে খ্যাত বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজীবিস্তারিত

বিজয়ের মাস ডিসেম্বর : উত্তর আমেরিকায় ব্যাপক প্রস্তুতি

বাংলা পত্রিকা রিপোর্ট: বিজয়ের মাস ডিসেম্বর। আগামী ১৬ ডিসেম্বর শনিবারবিস্তারিত

  • ২৩ জানুয়ারী থেকে ট্যাক্স রিটার্ন শুরু : আগেভাগেই উদ্যোগ নেয়ার আহ্বান বিশেষজ্ঞদের
  • জেবিবিএ’র সাংবাদিক সম্মেলন : ৫ সদস্যের নতুন নির্বাচন কমিশন ঘোষণা
  • কানেটেকাট বিশ্ববিদ্যালয়ে কাজী নজরুল ইসলাম চেয়ার প্রতিষ্ঠার উদ্যোগ : ফান্ড রেইজিং অনুষ্ঠান ৯ ডিসেম্বর
  • বাংলাদেশের রাজনীতিতে পরষ্পরের শ্রদ্ধাবোধের অভাবের সংস্কৃতি মোটেই কাম্য নয়
  • লাগোর্ডিয়া কমিউনিটি কলেজের বাংলাদেশী শিক্ষার্থীদের ‘ভিক্টোরী ডে’ উদযাপন
  • যুক্তরাষ্ট্র আ.লীগের উদ্যোগে বিজয় দিবসের আলোচনা সভা ১৬ ডিসেম্বর
  • মরহুম মেয়র আনিসুল হকের জন্য যুক্তরাষ্ট্র আ.লীগের দোয়া কামনা
  • নাচ-গান আর সুরের লহড়ীতে দর্শক-শ্রোতাদের আনন্দের বাঁধ ভেঙ্গে দিলো
  • জেবিবিএ’র সঙ্কট সমাধানে উপদেষ্টা পরিষদের সাথে ইসি’র বৈঠক অনুষ্ঠিত
  • সাংবাদিক স্বপন হাই’র সাথে অপেশাদার আচরণের তীব্র নিন্দা
  • নিউইয়র্কের বাফেলো’তে প্রকাশিত হলো ‘বাফেলো বাংলা’
  • প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশেই এই সিদ্ধান্ত হয়েছে: নবী কমান্ডার-ইমদাদ চৌধুরী : মহানগর আ.লীগ থেকে জাকারিয়া চৌধুরী বহিষ্কার
  • error: Content is protected !! Please don\'t try to copy.